ঢাকা, সোমবার, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২০ মে ২০২৪, ১১ জিলকদ ১৪৪৫

জাতীয়

কক্সবাজার বিমান বন্দরের রানওয়ে সম্প্রসারণে ঠিকাদার নিয়োগ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮০৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩০, ২০২০
কক্সবাজার বিমান বন্দরের রানওয়ে সম্প্রসারণে ঠিকাদার নিয়োগ ফাইল ফটো

ঢাকা: কক্সবাজার বিমান বন্দরের রানওয়ে সম্প্রসারণে এক হাজার ৫৬৮ কোটি টাকা ব্যয়ে ঠিকাদার নিয়োগের ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। এছাড়া বৈঠকে মোট ৬টি ক্রয় প্রস্তাবের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।


 
বুধবার (৩০ ডিসেম্বর) অনলাইনে সিঙ্গাপুরে অবস্থানরত অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব আবু সালেহ মোস্তফা কামাল ভার্চ্যুয়াল মাধ্যমে সংবাদ সম্মেলনে বলেন, কক্সবাজার বিমান বন্দরের রানওয়ে সম্প্রসারণ প্রকল্পের ঠিকাদার নিয়োগের ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। যৌথভাবে এম/এস সিওয়াইডব্লিউইবি ও সিসিইসিসি কে এক হাজার ৫৬৮ কোটি ৮৬ লাখ টাকায় এ কাজটি করবে।

বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের অপর এক প্রস্তাবে, কক্সবাজার বিমান বন্দর উন্নয়ন প্রকল্প (১ম পর্যায়) (৩য় সংশোধিত) পূর্ত কাজের ভেরিয়েশন প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এতে ব্যয় ধরা হয়েছে ৭০ কোটি ২৩ লাখ ৮৬ হাজার ৮৯৫ টাকা। কাজটি পেয়েছে কোরিয়ার হাল্লা কনস্ট্রাকশন কোম্পানি। বাস্তবায়নকারী সংস্থা বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ।

প্রস্তাবনায় বলা হয়েছে, বেসরকারি বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের অধীন কক্সবাজার বিমান বন্দর উন্নয়ন (১ম পর্যায়) (৩য় সংশোধিত) প্রকল্পের পূর্ত কাজ সম্পাদনে ০৮/০৪/২০১৫ তারিখের সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির অনুমোদনক্রমে ৫৭৮ কোটি ২০ লাখ ৭৭ হাজার ৭৩৪ টাকায় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি করা হয়। এ পর্যন্ত প্রকল্পের ভৌত অগ্রগতি ৯৬.৩৪ শতাংশ। কিন্তু কিছু অতিরিক্ত কাজ সম্পাদনের জন্য প্রকল্পের ভেরিয়েশন বাবদ অতিরিক্ত ৭০ কোটি ২৩ লাখ ৮৬ হাজার ৮৯৫ টাকা প্রয়োজন হবে। ভেরিয়েশনসহ সর্বমোট ব্যয় দাঁড়িয়েছে ৬৫৩ কোটি ৭১ লাখ ৬ হাজার টাকা।

বাংলাদেশ সময়: ১৮০৪ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩০, ২০২০
জিসিজি/এমআরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।