ঢাকা, সোমবার, ২৩ মাঘ ১৪২৯, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৪ রজব ১৪৪৪

জাতীয়

দেড় মাসেও খোঁজ মেলেনি নিখোঁজ নারীর

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০০৫৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১১, ২০২২
দেড় মাসেও খোঁজ মেলেনি নিখোঁজ নারীর নিখোঁজ এনজিও কর্মী মিরা খাতুন

টাঙ্গাইল: টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে দেড় মাসেও খোঁজ মেলেনি মিরা খাতুন নামে এনজিও কর্মী এক নারীর। গত ২০ নভেম্বর ভূঞাপুরের ফলদা হিন্দুপাড়ায় কিস্তি আদায় করতে গিয়ে নিখোজঁ হন তিনি।

নিখোঁজ হওয়ার দিন ভূঞাপুর থানায় সাধারণ ডায়েরি করলেও এখনও কোনো তথ্য দিতে পারেনি পুলিশ।

নিখোঁজ মিরা খাতুনের সন্ধানের দাবিতে সোমবার (১০ জানুয়ারি) টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছে তার স্বজনরা।

সংবাদ সম্মেলনে মিরা খাতুনের মা হুসনেয়ারা বেগম জানান, দেড় বছর আগে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা এসএসএস নামে এক এনজিওতে চাকরি নেন তার মেয়ে। প্রতিদিনের মতো গত ২০ নভেম্বর মিরা খাতুন তার কর্মরত অফিস ভূঞাপুরের ফলদা শাখা থেকে কিস্তি উত্তোলনের জন্য বের হয়ে যান। পরে তিনি মাইজবাড়ি ঝনঝনিয়া থেকে কিস্তি আদায় করে চন্ডিপুর ও হিন্দুপাড়ায় কিস্তি আদায় করতে যাওয়ার সময় নিখোঁজ হন।

ওই দিন রাত ৯টার দিকে ভূঞাপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন এসএসএস ফলদা শাখার ম্যানেজার বন্যা আক্তার। পরে দীর্ঘ সময় অতিবাহিত হলেও পুলিশের পক্ষ থেকে কোনো সহযোগিতা পাননি বলে জানান নিখোঁজ নারীর স্বজনরা। পুলিশকে সন্দেহভাজন কয়েকজনের নাম বললেও তাদের বিরুদ্বে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি বলেও জানান তারা।

যেদিন থেকে মিরা খাতুন নিখোঁজ সেদিন থেকে ওই এলাকার বেশ কিছু লোক গা ঢাকা দিয়ে থাকলেও পুলিশ তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না বলে অভিযোগ করেন তার মা হুসনেয়ারা বেগম।

সংবাদ সম্মেলনে কান্নাজড়িত কণ্ঠে তিনি বলেন, আমার মেয়ের দুটি সন্তান রয়েছে, তাদের লালন-পালন করতে আমার মেয়েকে ফিরে পাওয়া খুব দরকার।

ভূঞাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আব্দুল ওহাব বলেন, যেহেতু মামলাটা স্পর্শকাতর তাই খুব সাবধানে কাজ করছি। প্রথমে তারা কোনো তথ্যই দিতে পারেনি তাই আমরা আমাদের মতো করে কাজ করেছি। নিখোঁজ নারী কোনো ধরনের ফোন ব্যবহার না করায় তাকে খুঁজে পেতে একটু বিলম্ব হচ্ছে। খুব দ্রুতই আমরা তার খোঁজ বের করতে সক্ষম হবো।

বাংলাদেশ সময়: ০০৫৭ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১১, ২০২২
এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa