ঢাকা, রবিবার, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৯ মে ২০২৪, ১০ জিলকদ ১৪৪৫

মুক্তমত

শিক্ষাক্ষেত্রে বিশাল অবদান রাখছে বসুন্ধরা গ্রুপ

মো. সালেক মূহিদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত), রাঙ্গাবালী, পটুয়াখালী | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১২৫ ঘণ্টা, আগস্ট ১৯, ২০২৩
শিক্ষাক্ষেত্রে বিশাল অবদান রাখছে বসুন্ধরা গ্রুপ মো. সালেক মূহিদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত), রাঙ্গাবালী, পটুয়াখালী

সরকারের পাশাপাশি উপকূলীয় জনগোষ্ঠীর জন্য শিক্ষার মতো মৌলিক অধিকার নিয়ে কাজ করছে দেশের বৃহত্তম শিল্প পরিবার বসুন্ধরা গ্রুপ। এই শিল্প পরিবারটি পটুয়াখালীর বিচ্ছিন্ন দ্বীপ উপজেলা রাঙ্গাবালীর সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের শিক্ষাব্যবস্থায় মানবিকতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে।

বসুন্ধরা শুভসংঘের মাধ্যমে তাদের কাজকে সম্প্রসারিত করেছে। সত্যি এটি ভালো লাগার মতো একটি বিষয়।

দেশের স্বনামধন্য একটি বৃহৎ শিল্প পরিবার তাদের ব্যবসার পাশাপাশি যেভাবে মানবিক কাজ অব্যাহত রেখেছে, তা খুবই প্রশংসনীয়। ‘দেশ ও মানুষের কল্যাণে’ স্লোগান সামনে রেখে কাজ করা এই প্রতিষ্ঠানটি দেশের একটি বিচ্ছিন্ন অঞ্চলেও তাদের মানবিক কর্মকাণ্ড পরিচালিত করছে। আমার কাছে মনে হয়েছে, বসুন্ধরা গ্রুপ শুধু দেশের একটি বৃহৎ শিল্প পরিবারই নয়, দেশের শীর্ষ মানবিক প্রতিষ্ঠানও। কভিড-১৯-এর ক্রান্তিকালে দেশের মানুষের কল্যাণে চিকিৎসাসেবা ও খাদ্য সহায়তা দিয়ে অবদান রেখেছে।

এ ছাড়া সারা দেশে সুবিধাবঞ্চিত, বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী শিশুদের পড়াশোনার সুযোগ করে দেওয়াসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে অসামান্য অবদান রেখে চলেছে বসুন্ধরা গ্রুপ। এসব মানবিক কাজে বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহানের দুঃসাহসিকতার পরিচয় মিলেছে। তাঁর একান্ত প্রচেষ্টা ও সুনিপুণ চিন্তা এবং ইমদাদুল হক মিলনের নেতৃত্বে বসুন্ধরা শুভসংঘ এগিয়ে চলছে দুর্বার গতিতে। বসুন্ধরা ব্যাবসায়িক নানা কর্মকাণ্ড দেশের কল্যাণ ও সমৃদ্ধিতে অপরিসীম ভূমিকা রাখছে।
পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার বিচ্ছিন্ন এলাকা চরইমারশনের স্কুলবিমুখ শিক্ষার্থীদের শিক্ষার ব্যবস্থা করা, উপজেলার আরেকটি বিচ্ছিন্ন ইউনিয়ন চরমোন্তাজের মাঝেরচর সরকারি স্কুলের শিক্ষার্থীদের খেয়া নৌকার মাধ্যমে পারাপারের সুবিধা প্রদান করাসহ বিভিন্ন সামাজিক কর্মকাণ্ডে বিশেষ ভূমিকা রাখছে বসুন্ধরা শুভসংঘ।
আমি আসা করি, উপজেলার পিছিয়ে পরা জনগোষ্ঠীর (মান্তাদের) জন্য বসুন্ধরা গ্রুপ আরো মানবিক কার্যক্রম সম্প্রসারিত করবে। সম্ভাবনাময় পায়রা বন্দর ঘিরে বসুন্ধরা গ্রুপ যদি একটি বৃহৎ শিল্পকারখানা করে, তবে এই অঞ্চলের মানুষ উপকৃত হবে, সমাজের কল্যাণ হবে, দেশের কল্যাণ হবে এবং এলাকাটিও সমৃদ্ধ হবে। আহমেদ আকবর সোবহানসহ তাঁর পরিবারের সবাই খুবই মানবিক মানুষ। তাঁদের অনুপ্রেরণা ও নির্দেশনায় দেশের নানা প্রান্তে মানবিক কাজ করছে প্রতিষ্ঠানটি।

বিশেষ করে অসচ্ছল নারীদের স্বাবলম্বী করতে জেলা-উপজেলাসহ প্রত্যন্ত অঞ্চলে প্রতিষ্ঠা করা হচ্ছে সেলাই প্রশিক্ষণ কেন্দ্র। প্রশিক্ষণ শেষে তাঁদের হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে সেলাই মেশিন। সর্বোপরি বলব, বসুন্ধরা শুভসংঘ ‘শুভ কাজে সবার পাশে’ থাকুক এবং দেশ ও মানুষের কল্যাণে এগিয়ে চলুক। তাদের উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি কামনা করছি।

বাংলাদেশ সময়: ১১২৫ ঘণ্টা, আগস্ট ১৯, ২০২৩
এসআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।