ঢাকা, সোমবার, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৭ মে ২০২৪, ১৮ জিলকদ ১৪৪৫

ভারত

সরকারে যোগ দিল ত্রিপুরার প্রধান বিরোধী দল

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৫৫ ঘণ্টা, মার্চ ৭, ২০২৪
সরকারে যোগ দিল ত্রিপুরার প্রধান বিরোধী দল

আগরতলা(ত্রিপুরা): লোকসভা নির্বাচনের আগে ত্রিপুরায় বড় চমক দেখালো বিজেপি, রাজ্যের প্রধান বিরোধী দল তিপ্রামথাকে বিজেপি-আইপিএফটি জোট সরকারে সামিল করলো। বৃহস্পতিবার(৭ মার্চ) রাজ্য মন্ত্রিসভায় শামিল হল তিপ্রামথা।

এদিন রাজ ভবনে ইন্দ্র সেনা রেড্ডি নাল্লু তিপ্রামথা দলের দুই বিধায়ককে শপথ বাক্য পাঠ করান। এই দুই জন হলেন বিরোধীদল নেতা অনিমেষ দেববর্মা এবং বিধায়ক বৃষকেতু দেববর্মা। এদের মধ্যে অনিমেষ দেববর্মা পূর্ণ মন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন এবং বৃষকেতু দেববর্মা প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন। এরা দুইজনে ককবরক ভাষায় শপথ গ্রহণ করেন। এই সময় শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ত্রিপুরা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী অধ্যাপক ডা. মানিক সাহা, তিপ্রামথা দলের প্রতিষ্ঠাতা প্রদ্যুৎ কিশোর দেববর্মণসহ রাজ্য মন্ত্রিসভার অন্যান্য সদস্য বিধায়ক এবং সরকারি কর্মকর্তারা।

শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানের পর মুখ্যমন্ত্রী অধ্যাপক ডা. মানিক সাহাকে সাংবাদিকদের তরফে দপ্তর বণ্টনের বিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন খুব দ্রুত মন্ত্রীদের মধ্যে দপ্তর বণ্টন করা হবে। নতুন করে দপ্তর বণ্টিত হলে সবাইকে জানিয়ে দেওয়া হবে। তিনি আরো জানান রাজভবন থেকে বেরিয়ে সরাসরি বিমানবন্দরে যাচ্ছেন, এদিন তিনি পশ্চিমবঙ্গের মালদায় দলীয় কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করতে যাবেন তারপর সেখান থেকে ফিরলে দপ্তর বণ্টন করা হবে।

তিনি আরো বলেন জাতির জনজাতি সবাই মিলে শ্রেষ্ঠ ত্রিপুরা বানানোর জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। এই কাজে তিপ্রামথাও শামিল হয়েছে।

অপরদিকে শপথ নেওয়ার পর অনিমেষ দেববর্মা নিজের প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতে গিয়ে বলেন, বিরোধীদল নেতার এক ধরনের দায়িত্ব ছিল, মন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার পর দায়িত্ব অন্য রকম হয়েছে। এই দায়িত্ব তিনি গুরুত্বসহকারে পালন করতে সক্ষম হবেন।

প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করার পর বৃষকেতু দেববর্মা বলেন, তারা আগে যেমন নিজেদের অধিকার এবং দাবির জন্য লড়াই করেছেন। মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর ও সমানভাবে অধিকার এবং দাবি দাবার জন্য লড়াই করবেন। তখন সাংবাদিকদের তরফে জিজ্ঞাসা করা হয় মন্ত্রী হিসেবে দাবি আদায়ের লড়াইটা কি কঠিন হবে না? কারণ সরকারে থেকে সরকারের বিরুদ্ধে নিজেদের অধিকার আদায়ের জন্য লড়াই করা কি কঠিন নয়? এর উত্তরে তিনি বলেন দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন আগামী দিনে কি হয় না হয় তা আগে থেকে বলা সম্ভব নয়। পরিস্থিতি বুঝে সিদ্ধান্ত নেবেন।

তিপ্রামথা দলের সুপ্রিমো প্রদ্যুৎ কিশোর দেববর্মনকে সরকারের শামিল হওয়ার বিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, তারা যে আন্দোলন করছেন দাবে দাবা করছেন তা কোন দলের জন্য বা কোন ব্যক্তির জন্য নয়, তাদের দাবি এবং আন্দোলন জনজাতি অংশের মানুষের কল্যাণে। আগে বিরোধী থেকে আন্দোলন চালিয়েছিলেন এবার সরকারে থেকে তারা তাদের অধিকারের জন্য কথা বলবেন। তবে তাদের অধিকার আদায়ের লড়াই জারি থাকবে বলে এদিন জানিয়ে দেন।

এখন দেখার বিষয় বিজেপির সঙ্গে যোগদানের ফলে রাজনৈতিকভাবে কে বেশি লাভবান হয়েছে মথা না বিজেপি। এই উত্তরের জন্য রাজ্যবাসীকে আরো কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে। লোকসভা নির্বাচনে এই জোটের ফলে বিজেপি যে আরো অনেকটা এগিয়ে গেল তা এখনই বলা যায়।

শপথ গ্রহণের আগে অনিমেষ দেববর্মা বিধানসভা ভবনে গিয়ে স্পিকার বিশ্ব বন্ধু সেনের হাতে পদত্যাগ পত্র পেশ করেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৫৫ ঘণ্টা, মার্চ ৭, ২০২৪
এমএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।