ঢাকা, শনিবার, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৩ শাবান ১৪৪৫

জাতীয়

মেঘনায় জাটকা ধরায় ১৮ জেলের কারাদণ্ড

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৯২৪ ঘণ্টা, মার্চ ২৪, ২০২৩
মেঘনায় জাটকা ধরায় ১৮ জেলের কারাদণ্ড কেউ হাতজোর করে, কেউ বা কান ধরে ক্ষমা চাইছেন

চাঁদপুর: জাটকা রক্ষায় মার্চ-এপ্রিল দুই মাসের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে চাঁদপুরের পদ্মা-মেঘনার অভয়াশ্রম এলাকায় জাটকা ধরার অপরাধে ১৮ জেলেকে এক মাস করে কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বৃহস্পতিবার (২৩ মার্চ) রাত ৮টায় কোস্টগার্ড চাঁদপুর স্টেশনে এ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন মতলব উত্তর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আল এমরান খান।

রাত ১১টায় এসব তথ্য বাংলানিউজকে নিশ্চিত করেন চাঁদপুর সদর উপজেলা সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান।

কারাদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন-মো. জুয়েল, সাকিব, মো. মিজান, মো. মুন্না হাসান, শিপন, শাহাদাত, শাহিন, হাবিবুল্লাহ, তাজুল ইসলাম, মো. হাবিব, মো. ওমর আলী, নজরুল ইসলাম, মো. রাজ্জাক আলী, নবীর হোসেন মাল, মো. কবির হোসেন, দ্বীন ইসলাম, নবীর হোসেন মিজি ও মো. জসিম। তাদের বাড়ি চাঁদপুর ও মুন্সিগঞ্জ জেলার বিভিন্ন এলাকায়।

সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান বলেন, বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত অভয়াশ্রম এলাকায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, মৎস্য বিভাগ, কোস্টগার্ড ও নৌ পুলিশের পক্ষ থেকে যৌথভাবে অভিযান চালানো হয়। এসময় মতলব উত্তর উপজেলার মোহনপুর থেকে ১১ জন, আনন্দবাজার থেকে দুজন, রাজরাজেশ্বর থেকে ছয়জনসহ ১৯ জন জেলেকে আটক করা হয়। এর মধ্যে ১৮ জনকে এক মাস করে কারাদণ্ড দেওয় হয়। তবে বয়স ১৮ বছরের কম হওয়ায় কিশোর এক জেলেকে সতর্ক করে পরিবারের জিম্মায় ছেড়ে দেওয়া হয়।  

অভিযানে জব্দ করা হয় মাছ ধরার তিনটি নৌকা এবং ২০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল, জানান তিনি।

এ কর্মকর্তা আরও বলেন, জব্দ করা নৌকাগুলো কোস্টগার্ডের হেফাজতে এবং জালগুলো নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে আগুনে পুড়িয়ে বিনষ্ট করা হয়।

অভিযানে চাঁদপুর সদর উপজেলা জ্যেষ্ঠ মৎস্য কর্মকর্তা মো. তানজিমুল ইসলাম, ক্ষেত্র সহকারী জামিল হোসেনসহ কোস্টগার্ড ও নৌ পুলিশের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ০৯২০ ঘণ্টা, মার্চ ২৪, ২০২৩
এসআই
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।