ঢাকা, বুধবার, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৯ মে ২০২৪, ২০ জিলকদ ১৪৪৫

জাতীয়

মিরপুর চিড়িয়াখানায় হাতির আঘাতে মাহুতের ছেলের মৃত্যু

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৫৭ ঘণ্টা, এপ্রিল ১১, ২০২৪
মিরপুর চিড়িয়াখানায় হাতির আঘাতে মাহুতের ছেলের মৃত্যু

ঢাকা: রাজধানীর মিরপুরে জাতীয় চিড়িয়াখানায় হাতির আঘাতে জাহিদ নামের এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১১ এপ্রিল) ঈদের দিন সকাল ১১টায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন চিড়িয়াখানার পরিচালক ড. মো. রফিকুল ইসলাম তালুকদার।  

তিনি বাংলানিউজকে বলেন, আমাদের আজাদ আলী নামের একজন হাতির মাহুত আজ সকাল ১১টায় তার ছেলে জাহিদকে নিয়ে হাতির বেষ্টনীর ভেতরে প্রবেশ করেন। ওই সময় হাতির পরিচর্যা করা হচ্ছিল। হঠাৎ করে নতুন একজনকে দেখে হাতিটি ঘাবড়ে গিয়ে আতর্কিতভাবে তার ওপর আক্রমণ করে। হাতিটি মাহুতের ছেলেকে শুঁড়ে পেঁচিয়ে আছাড় দেয় বলে জেনেছি।

তিনি বলেন, সাধারণত মাহুতের নিয়ন্ত্রণে থাকে এবং তার নির্দেশনাও মানে হাতি। আর এই মাহুত ছাড়া বেষ্টনীর ভেতরে অন্য কারও প্রবেশ নিষেধ।  

মাহুত কেন ছেলেকে নিয়ে হাতির বেষ্টনীর ভেতরে প্রবেশ করেছেন, জানতে চাইলে চিড়িয়াখানার পরিচালক বলেন, যতদূর জেনেছি মাহুত আজাদ বংশ পরম্পরা এই কাজ করে আসছিলেন। ঈদে তার ছেলে ঢাকায় এলে তাকে চিড়িয়াখানায় নিয়ে আসে। মাহুত যা বললেন তাতে বোঝা যায় তার সচেতনতার কমতি ছিল। তিনি বোধহয় ভেবেছিলেন সব স্বাভাবিক থাকবে। কিন্তু ঘাবড়ে যায় হাতিটি।  

কখন জানতে পারলেন বিষয়টি, এমন প্রশ্নের জবাবে পরিচালক বলেন, সকাল ১১টায় হাতি আঘাতে ছেলে মারা গেলেও খবরটি জানাননি মাহুত আজাদ। তিনি নিজেই সিএনজি ডেকে হাসপাতালে নিচ্ছিলেন।  পথে ছেলেটির মৃত্যু হয়। তখন রাস্তা থেকে গ্রামের উদ্দেশে রওনা দেন তিনি। পরে চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ বিষয়টি জানলে দুপুর ১২টায় মাহুতকে ফোন দিলে তিনি জানান বিনা অনুমতিতে ছেলেকে প্রবেশ করায় বিষয়টি লুকিয়ে ছিলেন।

চিড়িয়াখানার পরিচালক রফিকুল ইসলাম বলেন, তিনি সম্ভবত চাকরি হারানোর ভয় করেছিলেন। কিন্তু তার উচিত ছিল আমাদের জানানোর।

এ ঘটনায় চিড়িয়াখানার পরিচালক রফিকুল ইসলাম বলেন, চিড়িয়াখানার প্রাণীদের পরিচর্যাকারীদের নির্দেশনা দেওয়া আছে, কি কি করা যাবে না। এখন আমরা আবারও সবাইকে নিয়ে কাউন্সিলিং করবো।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৫২ ঘণ্টা, এপ্রিল ১১, ২০২৪
এমএমআই/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।